ডেঙ্গু রোগীদের জন্য উপকারি তিন ফলের জুস

লাইফস্টাইল ডেস্ক : প্রচুর পরিমাণ তরল খবার খেতে হবে। পানি, ডাবের পানি, ফলের জ্যুস, বিভিন্ন ধরনের স্যুপ, জাউ ভাত প্রভৃতি খাওয়াতে রোগী দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন।

এছাড়া ফল ও সবজির জুস, লেবু, কমলালেবু, আনার, আপেল, টমেটো, বিট, শসার মতো জলীয় অংশ ও পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ খাদ্য উপাদানের জুস রোগীদের আরোগ্য লাভের ক্ষেত্রে সহায়ক হবে।

আমলকীর জুস – আমলকী চারটি, গোলমরিচের গুঁড়া সামান্য, মধু এক চা চামচ, বরফ কুচি পাঁচ চা চামচ এবং পানি দুই কাপ। প্রস্তুত প্রণালি, প্রথমে আমলকী থেঁতলে নিয়ে এর সঙ্গে গোলমরিচের গুঁড়া মিশিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করে নিন। এবার এতে দুই কাপ পানি দিয়ে এক মিনিট ব্লেন্ড করুন।

কমলালেবুর জুস – জুসটি তৈরির জন্য প্রয়োজন হবে দুইটি কমলালেবুর রস, এক-চতুর্থাংশ লেবুর রস, একটি মাঝারি আকৃতির আপেলের টুকরা, আধা ইঞ্চি পরিমাণ আদা কুঁচি, এক চা চামচ মধু ও আধা চা চামচ বিট লবণ। প্রণালী, প্রথমে আপেলের টুকরাগুলো ব্লেন্ড করে এতে কমলালেবুর রস, লেবুর রস, আদা কুঁচি, মধু ও বিট লবণ দিয়ে পুনরায় ব্লেন্ড করতে হবে। যদি খুব বেশি ঘন জুস পছন্দ না হয়, তবে আধা কাপ পানি যোগ করা যাবে।

জ্বর, মাথাব্যথা, শরীরে ও গিরায় ব্যথা, খাওয়ায় অরুচি, ক্লান্তি, দুর্বলতা, নাক দিয়ে পানি পড়া, চোখ দিয়ে পানি পড়া, চোখ লাল হওয়া, চুলকানি, কাশি, অস্থিরতা ও ঘুম কম হতে পারে। অনেকের ক্ষেত্রে পেটের সমস্যা, বমি ও ডায়রিয়া হয়। শিশুদের ক্ষেত্রে টাইপ ‘বি’ ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের সংক্রমণে পেটব্যথাও হতে পারে।

আনারসের জুস – আনারস দুই কাপ, চিনি স্বাদমতো, লবণ সামান্য, সাদা গোলমরিচের গুঁড়া ১/২ চা চামচ, পানি ১/২ কাপ, বরফ ৪/৫ টুকরা । প্রস্তুত প্রণালি,প্রথমে ভালো করে আনারসের খোসা ছাড়িয়ে নিন। এরপর আনারসের গায়ে যে চোখের মতো অংশ থাকে, তা ভালো করে তুলে ফেলুন। এরপর ছোট ছোট টুকরা করে কেটে নিন। একটি ব্লেন্ডারে বরফ কুচি ছাড়া বাকি উপকরণগুলো একসঙ্গে ভালো করে ব্লেন্ড করে নিন। এরপর একটি গ্লাসে বরফ কুচি দিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার আনারসের জুস।

সবখবর/ আওয়াল

Facebook Comments