পাটুরিয়া রুটে টানা পাঁচদিন লঞ্চ বন্ধ যাত্রী দুর্ভোগ চরমে

শহিদুল ইসলাম,মানিকগঞ্জ : পদ্মায় পানি হ্রাসে স্রোতের তীব্রতা কমে আসায় বিশেষ করে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ রুটে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হলেও টানা পাঁচ দিন যাবৎ লঞ্চ চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে, দূঢ়পাল্লার কোচ যাত্রী পারাপারের ক্ষেত্রে মারাত্বক অচলাবস্থা বিরাজ করছে।

এদিকে, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাটে ফেরি পারের উদ্দেশ্যে আসা বাস-কোচ, কার, ট্রাক-লড়িসহ বিভিন্ন যানবাহনের দীর্ঘ লাইনে সৃষ্ট যানজটে অগনিত যাত্রীসাধারণ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসি আরিচা ফেরি সেক্টরের পাটুরিয়াা রুটে ছোট-বড় ১৬টি ফেরি চলাচল করছে। নদীতে পানি বৃদ্ধি ও তীব্র স্রোতে গত শুক্রবার দুপুরে কয়েক ঘন্টা ফেরি চলাচল ব্যাহতের পর তা স্বাভাবিক হয়। দূঢ়পাল্লার বাস-কোচের যাত্রী দ্রুত পারাপারের জন্য পাটুরিয়া রুটে বিশেষ লঞ্চ সার্ভিস চালু রয়েছে।

তীব্র স্রোতের কারন দেখিয়ে ঐ দিন থেকে মঙ্গলবার রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত টানা ৫দিন যাবৎ লঞ্চ চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। এতে যাত্রীসাধারন বাধ্য হয়ে ফেরিতে পারাপার হচ্ছে। যার ফলে, লঞ্চ ও পরিবহন মালিক-কর্মচারীরা দারুন আর্থিক ক্ষতির সম্মুক্ষিন হচ্ছে।

এরুটের লঞ্চ মালিক-কর্মচারীরা অভিযোগ করেন, পানি ও স্রোতে বৃদ্ধি স্বত্ত্বেও উভয় ঘাটে লঞ্চ পন্টুন স্বাভাবিক রয়েছে। হঠাৎ পানি ও স্রোতে বৃদ্ধির এক পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অযৌক্তিক নির্দেশে গত পাঁচ দিন যাবৎ লঞ্চ বন্ধ রাখা হয়েছে।

নাম পদবী প্রকাশ না করার শর্তে জনৈক লঞ্চ মালিক জানান, এ রুটের লঞ্চ বন্ধ রেখে ফেরিতে যাত্রী পারাপার করায় কতিপয় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পকেট ভারি হচ্ছে। গত কয়েকদিনে পদ্মার পানি দৌলতদিয়া পয়েন্টে অন্তত ৪০ সেন্টিমিটার হ্রাস পাওয়ায় স্রোতেও ঘূর্ণাবর্তের মাত্রা কমে আসলেও হীন উদ্দেশ্যে এরুটের লঞ্চ বন্ধ রাখা হয়েছে।

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিএ’র নৌ নিরাপত্তা ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পরিচালক ফরিদুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি জনৈক লঞ্চ মালিকের অভিযোগ উল্টে বলেন, নদীতে তীব্র স্রোতেও ঘূর্ণাবর্তে নৌ-দুর্ঘটনা এড়াতে লঞ্চ চলাচল সাময়িক বন্ধ রাখা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই পূনরায় তা চালু হবে।

সবখবর/ আওয়াল

Facebook Comments