শাহরুখকে নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য সালমানের!

বলতে গেলে প্রায় দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে বলিউডে রাজত্ব করছেন তিন খান। সালমান, আমির ও শাহরুখ।

নিজস্ব অভিনয় দক্ষতায় ভিন্ন ভিন্ন তকমা জুড়েছেন নামে পাশে তিনজনই।

তিনজনের ঝুলিতেই জমা রয়েছে অনেক ব্লকবাস্টার সুপার ডুপার হিট সিনেমা।

তবে বাকি দুই খানের মতো বলিউডে নিজের অবস্থান তৈরিটা অতো সহজ ছিল না শাহরুখ খানের। বেশ কাটখড় পোড়াতে হয়েছে তাকে। সালমানের মতো ফিল্মি পরিবারের সন্তান নন তিনি।

কিন্তু বলিউড বাদশা বা কিং খান বলা হয় তাকে। অথচ এই বলি বাদশা নাকি প্রথম দিকে সালমান খানকে ‘স্যার; সম্বোধন করতেন। সিনেমায় কাজ চাইতেন তার কাছে।

এমনটা সালমান নিজেই জানিয়েছিলেন সংবাদমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে। কয়েক বছর আগে বলি কুইন ক্যাটরিনা কাইফের জন্মদিনে শাহরুখের সঙ্গে বাক-বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন সালমান।

এরপরই তাদের বন্ধুত্বে চিড় ধরে। দুজনে নিজেদের মধ্যে কথা বলা তো দূরের কথা মুখ দেখাদেখি বন্ধ করে দেয়।

ওই সময় বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে শাহরুখের বিরুদ্ধে নানাভাবে ক্ষোভ উগরে দিতে গিয়ে এমন কতা বলেন সালমান।

ওই সাক্ষাৎকারে সালমান বলেছিলেন, ‘শাহরুখ আমার ভাইয়ের মতো। কিন্তু বলিউডে নতুন এসে সে আমাকে স্যার বলে ডাকত। ’

তিনি আরও বলেছিলেন, ‘আমি শাহরুখকে দেখেছি কাজের জন্য দরজায় দরজায় ঘুরতে। কিন্তু এখন একেবারে অন্যরকম হয়ে গেছে সে। একমাত্র ঈশ্বরই আমাদের আবার বন্ধুত্ব করাতে পারবে, এছাড়া এটা হবার নয়। ’

তবে ইশ্বর তাদের আবার মিলিয়ে দিয়েছেন। ওই ঘটনার বছর খানিক পর আবারও বন্ধুত্ব হয়েছে এই দুই তারকার। একসঙ্গে স্ত্রিনও শেয়ার করতে দেখা গেছে তাদের। গত বছরের শেষের দিকে শাহরুখের ‘জিরো’ সিনেমাতে একটি গানে অতিথি চরিত্রে অভিনয় করেছেন সালমান। আবার সালমানের ‘টিউবলাইট’ সিনেমায় শাহরুখ খানও অতিথি শিল্পী হিসেবে হাজির হয়েছিলেন।

মঞ্চ ও টিভিতে নাটক করার পর সিনেমায় সুযোগ পান শাহরুখ খান। প্রথমদিকে পার্শ্বচরিত্র পেতেন, গুরুত্বপূর্ণ কোনো ভূমিকায় দেখা যেতো না তাকে। এরপর বেশ কয়েকটি ফ্লপ সিনেমায় অভিনয়ের পর সাফল্যের দেখা পান শাহরুখ।

১৯৯৩ সালে ডর এবং বাজীগর চলচ্চিত্রের মাধ্যমে রুপালী পর্দার এক অনন্য নাম হয়ে ওঠেন শাহরুখ।

Facebook Comments