আদালতে বছরের পর বছর চলে দেনমোহর আদায়ের লড়াই - সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
আদালতে বছরের পর বছর চলে দেনমোহর আদায়ের লড়াই - সব খবর | Sob khobar




আদালতে বছরের পর বছর চলে দেনমোহর আদায়ের লড়াই

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই, ২০২১
  • ১০৫ জন পড়েছে

বিয়ে হচ্ছে একজন নারী ও একজন পুরুষের মধ্যে সামাজিক চুক্তির বন্ধন। এ চুক্তি সম্পাদনের অন্যতম শর্ত দেনমোহর। দেনমোহর হলো কিছু অর্থ বা সম্পত্তি, যা বিয়ে বন্ধনে জড়ানোর প্রতিদানস্বরূপ স্বামীর কাছ থেকে পেয়ে থাকেন স্ত্রী। ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক স্ত্রীর দেনমোহর পরিশোধ করা স্বামীর ওপর ফরজ করে দিয়েছে। বাংলাদেশ পারিবারিক আইনেও স্ত্রীকে দেনমোহরের টাকা দেয়া স্বামীর জন্য বাধ্যতামূলক।

বিয়ের সময় অনেকেই দেনমোহরের টাকা বাকি রাখেন। বিয়ে বিচ্ছেদ কিংবা দুজন আলাদা হয়ে যাওয়ার পর অনেক স্বামীই দেনমোহরের টাকা দিতে চান না স্ত্রীকে। এ দেনমোহরের টাকার জন্য নিরূপায় হয়ে আদালতের দ্বারস্থ হন অসহায় নারী। টাকার জন্য স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করেন। আদালতে ছোটাছুটি করতে করতে এক সময় ক্লান্ত হয়ে পড়েন তিনি। তবু প্রাপ্য সেই দেনমোহরের অপেক্ষা ফুরোয় না।

দেনমোহরের বিষয়ে আইনে যা রয়েছে
১৯৬১ সালের পারিবারিক আইনের ১০ ধারা মোতাবেক, ‘দেনমোহর পরিশোধ পদ্ধতি সম্পর্কে কাবিনে বিস্তারিত উল্লেখ না থাকলে স্ত্রীর তলবমাত্র সম্পূর্ণ টাকা পরিশোধ করিতে হইবে। স্ত্রীকে তালাক দেয়ার ব্যাপারে স্বামীকে প্রতিশ্রুত যাবতীয় অর্থ প্রদান করিতে হইবে এবং প্রতিশ্রুত অর্থের পরিমাণ অনেক বেশি কিংবা স্বামীর পরিশোধ ক্ষমতার বাহিরে, এই যুক্তিই স্ত্রীর দাবির বিরুদ্ধে উপযুক্ত জবাব নহে। যদিও [বেইলী-২য়, ৬৭} অনুযায়ী শিয়া আইনে দেনমোহরের সর্বনিম্ন কোনো অর্থ নির্দিষ্ট নাই।

দেনমোহরের পরিমাণ যদি নির্দিষ্ট করা না হইয়া থাকে, স্ত্রী দেনমোহর নির্ণয়কালে স্ত্রীর পিতার পরিবারের অন্যান্য নারী সদস্যের ক্ষেত্রে যেমন তাহার পিতার ভগিনীর ক্ষেত্রে, দেনমোহরের পরিমাণ কত ছিল তাহা বিবেচনা করিতে হইবে। [হেদায়া,৪৫; বেঈলী-৯২]’

এ বিষয় সুপ্রিম কোর্টের একাধিক আইনজীবীরা বলেছেন, আইন অনুযায়ী দেনমোহর স্বামীকে অবশ্যই পরিশোধ করতে হবে। কারণ দেনমোহর সব সময়ই স্বামীর ঋণ। স্ত্রী পারিবারিক আদালতে মামলা করে দেনমোহর আদায় করতে পারবেন। দেনমোহর দাবি করার পর স্বামী ওই দাবি পরিশোধ না করলে স্ত্রী স্বামীর কাছ থেকে পৃথক থাকতে পারবেন এবং ওই অবস্থায় স্বামী অবশ্যই তার ভরণ-পোষণ দিতে বাধ্য থাকবেন।

সবখবর/নিউজ ডেস্ক




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর