ইবি শিক্ষার্থীরা অতিষ্ট পরীক্ষা বিড়ম্বনায়! | সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
ইবি শিক্ষার্থীরা অতিষ্ট পরীক্ষা বিড়ম্বনায়! | সব খবর | Sob khobar




ইবি শিক্ষার্থীরা অতিষ্ট পরীক্ষা বিড়ম্বনায়!

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২৪ জন পড়েছে

আদিল সরকার, ইবি প্রতিনিধি: শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে করোনার মাঝেই বন্ধ ক্যাম্পাসে শুরু হয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের অনার্স-মাস্টার্সের চুড়ান্ত পরীক্ষা। অনার্স-মাস্টার্সের পরীক্ষা ছাড়াও বিভিন্ন বর্ষের সেমিস্টার পরীক্ষার তারিখও ইতোমধ্যে ঘোষণা করেছে কিছু বিভাগ। ফলে জীবনের ঝুকি নিয়েই পরীক্ষা দিতে বা পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে ক্যাম্পাসের আশ-পাশের এলাকায় ফিরেছেন শিক্ষার্থীরা।

তবে পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করার কিছু দিন পর কোন কারণ না দেখিয়েই পরীক্ষা স্থগিত করেছে ফার্মেসী বিভাগ। পাশাপাশি পরীক্ষা শুরু করার পরদিনই অনিবার্য কারণ দেখিয়ে মাস্টার্স-২০২০ এর পরীক্ষা স্থগিত করে দিয়েছে আল-হাদিস এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ। এতে করোনার মাঝে পরীক্ষার চরম বিড়ম্বনায় পরছেন শিক্ষার্থীরা। তবে এক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষের দূরদর্শিতা ও হঠাৎ সিদ্ধান্ত নেয়াকে দায়ী করছেন শিক্ষার্থীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শুধুমাত্র অনার্স-মাস্টার্সের পরীক্ষা গ্রহণের অনুমতি দিলেও তার ব্যাতিক্রমে গিয়ে অনার্স তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা নেয়ার তারিখ (২৫ জানুয়ারী) ঘোষণা করেছে ফার্মেসী বিভাগ। তবে পরীক্ষা শুরু হওয়ার কয়েকদিন আগেই সভাপতির কার্যালয় থেকে এক নোটিশ আদেশে সেই পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। জানা যায়, পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য প্রস্তুতি নিতে নির্দিষ্ট দিনের আগেই দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে ক্যাম্পাসের আশ-পাশ এলাকায় চলে এসেছেন শিক্ষার্থীরা। তবে হঠাৎ করে অনিবার্য কারণ দেখিয়ে পরীক্ষা স্থগিত হওয়ায় দুশ্চিন্তায় পরেছেন শিক্ষার্থীরা। কেননা করোনার মাঝে ক্যাম্পাসের পাশে অবস্থান করা এবং বাড়িতে চলে যাওয়া নিয়ে দুটানায় পড়ে আছেন তারা।

এবিষয়ে ফার্মেসী বিভাগের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী সুহান বলেন, পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা হওয়ায় কুমিল্লা (বাড়ি) থেকে স্বাস্থ্য ঝুকি নিয়েই ক্যাম্পাসের পাশে চলে এসেছি। কিন্তু এখন পরীক্ষা স্থগিত করেছে বিভাগ। এখন থাকবো নাকি চলে যাব বুঝতেছি না। এমনিতে স্বাস্থ্য ঝুকি নিয়ে গাদাগাদি করে মেসে অবস্থান করছি। এছাড়া কর্তৃপক্ষের দূরদর্শিতা থাকলে এমন ভোগান্তিতে পড়তে হতো না বলে দাবি একাধিক শিক্ষার্থী।

এদিকে গত ২২ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের ১১৯তম একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় ৩ জানুয়ারি (শীতকালীন ছুটির) পর বিভিন্ন বিভাগের অনার্স-মাস্টার্সের চুড়ান্ত পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। কিন্তু প্রশাসনের এ নির্দেশ অমান্য করে ৩য় বর্ষের পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করায় ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন একাধিক শিক্ষার্থীরা।

তবে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মনিরুজ্জামান জানান, গত একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় অনার্স- মাস্টার্সের পরীক্ষা শেষ হলে অন্যান্য বর্ষের পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি দেয়া হয়। আমাদের অনার্স- মাস্টার্সের শিক্ষার্থী না থাকায় ৩য় বর্ষের পরীক্ষার কার্যক্রম হাতে নিয়েছিলাম। পরবর্তীতে উপাচার্যের অনুমতি না পাওয়ায় পরীক্ষা স্থগিত করেছি।

এদিকে গত ১২ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে আল-হাদিস এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের মাস্টার্স পরীক্ষা-২০২০। তবে একটি পরীক্ষা শেষ হওয়ার পরদিনই (১২ জানুয়ারি) অনিবার্য কারণ দেখিয়ে সে পরীক্ষা স্থগিত করেছে বিভাগ। হঠাৎ করে শুরু হওয়া পরীক্ষা স্থগিত করাতে চরম বিড়ম্বনার শিকার হয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

তবে স্থগিত করার বিষয়ে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. সৈয়দ মাকসুদুর রহমান জানান, অধ্যাদেশ অনুযায়ী মাস্টার্স-২০১৯ এর পরীক্ষার আগে মাস্টার্স-২০২০ পরীক্ষা নিলে জটিলতা তৈরি হবে। তাই পরীক্ষা কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়ে পরীক্ষাটি স্থগিত করেছেন।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ল এন্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট (৩য় বর্ষ) সহ কয়েকটি বিভাগের পরীক্ষা নেয়ার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। তবে আবাসিক হল বন্ধ রেখে এসব পরীক্ষা নেয়া হুমকিস্বরূপ বলে জানান শিক্ষার্থীরা। কেননা হলে না থাকতে পেরে ক্যাম্পাসের আশে-পাশে মেসে গাদাগাদি করে স্বাস্থ্য ঝুকি নিয়ে থাকতে হচ্ছে তাদের। তারপরও পরীক্ষা দিতে এসে অনিবার্য কারণে আবার পরীক্ষা স্থগিত হওয়ার মতো বড় বিড়ম্বনা আর কি হতে পারে বলে প্রশ্ন থেকেই যায় শিক্ষার্থীদের?

সবখবর/ নিউজ ডেস্ক




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর