করোনা নয়, অন্নের চিন্তায় চিন্তিত নিম্ন আয়ের মানুষ | সব খবর | Sob khobar করোনা নয়, অন্নের চিন্তায় চিন্তিত নিম্ন আয়ের মানুষ | সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :




করোনা নয়, অন্নের চিন্তায় চিন্তিত নিম্ন আয়ের মানুষ

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ২৭ মার্চ, ২০২০
  • ১০০ জন পড়েছে

মহামারী করোনা ভাইরাস ইতিমধ্যে আক্রমণ করেছে বাংলাদেশকে।এখন পর্যন্ত ৩৩ জন ব্যক্তি আক্রান্ত সহ তিনজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। সংখ্য মানুষকে করোনা সন্দেহে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।পুরো দেশ জুড়ে নেমে এসেছে স্থবিরতা। প্রতিরোধ মূলক ব্যবস্থা হিসেবে মানুষ বাসা বাড়িতেই বেশি অবস্থান করছেন। ফলে সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েছেন খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষগুলো। শুধুমাত্র স্বাস্থ্যঝুঁকিতে নয়, বরং তিন বেলা আহার মুখে খাবারের বন্দবস্ত করাই অনেকটা অসম্ভব হয়ে পড়েছে তাদের।

হকার, কুলি কিংবা দিনমজুর মানুষগুলো পড়েছেন চরম বিপাকে। সাধারণত জনসমাগম হয়, এমন জায়গাগুলোতেই হকার কিংবা কুলি তাদের জীবিকা নির্বাহ করে। এমন ক্রান্তিকালে জনসমাগম নিষিদ্ধ হওয়ায় অনেকটা কর্মহীন হয়ে পড়েছে এই শ্রমজীবী মানুষগুলো। অনেক নিম্ন শ্রেনীর মানুষ আবার মহাজনের কাছ থেকে রিক্সা, অটো রিকশা কিংবা সিএনজি ভাড়া নিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে। সংকটে রয়েছেন বাংলাদেশের গার্মেন্টস খাত যেখানে প্রায় ৪০ লাখ কর্মী কাজ করেন৷ করোনা আতঙ্কে মানুষের যাতায়াত ব্যাপক হারে কমে যাওয়ায় সারাদিন উপার্জন করে মহাজনের ভাড়ার টাকা তুলতেই রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছেন এই মানুষগুলো।

হোটেল,রেষ্টুরেন্ট, দোকানপাট বন্ধ হওয়ায় কর্মহীন জীবনযাপন করছেন কর্মরত এসব কর্মচারী মানুষগুলো। তাছাড়াও অনেককেই আবার টানতে হয় ক্ষুদ্র ঋণের কিস্তির ঘানি। উপার্জন বন্ধ হলেও বন্ধ নেই অনেক এনজিওর টাকা পরিশোধের কার্যক্রম। ফলে সুদ কিংবা চক্রবৃদ্ধির চাপে অনেকটাই বিপর্যস্ত জীবনযাপন করছেন এই মানুষগুলো। করোনা পরিস্থিতির কারণে দোকানপাট বন্ধের আশঙ্কায় কেউ কেউ খাবার মজুদ করে রাখছে। আবার করোনাকে পুঁজি করে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী পণ্যের কৃত্রিম ম সংকট তৈরী করছেন। ফলে বাড়ছে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের দাম যা কিনা দরিদ্র মানুষগুলোর জন্য অনেক মরার উপর খাড়া ঘাঁ।

করোনা প্রাদুর্ভাবের কথা চিন্তা করে ইতিমধ্যে শিবচরকে লকডাউন করা হয়েছে।মাদারীপুর, ফরিদপুর সহ বেশ কয়েকটি অঞ্চলকে হয়ত শীঘ্রই এই লকডাইনের আওতায় আনা হতে পারে। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন পুরো বাংলাদেশকেই লকডাইনের পরামর্শ দিয়েছেন। বিশ্বব্যাংকের হিসেব অনুযায়ী, বাংলাদেশে প্রায় আড়াই কোটি মানুষ দারিদ্র্য সীমার নিচে বসবাস করেন৷ যারা দিন আনে দিন খায়। লকডাউন করা হলে কিংবা বর্তমান এই পরিস্থিতিতেও নিম্ন আয়ের এই মানুষগুলোর কি হবে?

তাই উদ্ভুত করোনা আতঙ্কের পাশাপাশি নিম্ন আয়ের এই মানুষগুলোর অন্যতম মৌলিক চাদিহা খাদ্য কিংবা ভরণ পোষণের নিয়ে গুরুত্ব সহকারে ভাবার সময় এসেছে। অন্যথায় তাঁরা করোনার পাশাপাশি না খেয়েই মৃত্যুর দিকে যাত্রা করবে। ইতিমধ্যে সরকার বিদ্যুৎ ও গ্যাসের বিল জুন মাস পর্যন্ত স্থগিত রেখেছেন যা প্রশংসনীয় ও সময়োপযোগী একটি সিদ্ধান্ত। নিম্ন আয়ের দিনমজুর মানুষের জীবন যাপনের সার্বিক সুবিধা নিশ্চিতকরণে সরকারের সব মহলের যুগোপযোগী ও কার্যকর ভুমিকার পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসা অত্যন্ত জরুরি।

তানভীর আহমেদ রাসেল

শিক্ষার্থী, ফার্মেসী বিভাগ, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর