ঘিওরে কোরবানির গরু বিক্রি নিয়ে শঙ্কায় ফার্মের মালিক
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
ঘিওরে কোরবানির গরু বিক্রি নিয়ে শঙ্কায় ফার্মের মালিক




ঘিওরে কোরবানির গরু বিক্রি নিয়ে শঙ্কায় ফার্মের মালিক

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: মঙ্গলবার, ৫ জুলাই, ২০২২
  • ৩৫২ জন পড়েছে

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার বানিয়াজুরিতে কোরবানির গরু বিক্রি নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন দেবাশীষ সিংহ নামে এক ফার্মের মালিক। দিব্য এগ্রো এন্ড ডেইরী ফার্ম নামের ওই প্রতিষ্ঠানটি তিনি গড়ে তুলেছেন এক বছর আগে। এবারই প্রথমবারের মত তার ফার্ম থেকে ৪৩ টি ষাঁড় বিক্রির উপযোগী করে তিনি লালন পালন করেছেন। খামারের যাবার রাস্তাটি ভাল না থাকায় বানিয়াজুরি-ঘিওর সড়কের পাশে নিজেদের জায়গায় তিনি একটি শেড করে প্রদর্শণী ও বিক্রয় কেন্দ্র বানিয়েছেন। তবে, স্থানীয় চেয়ারম্যান ও প্রশাসনের অনুমতি না পাওয়ায় তিনি পড়েছেন বিপাকে।

দেবাশীষ সিংহ জানান, বানিয়াজুরি গ্রামে নিজেদের ১৩ বিঘা ও ৭০ বিঘা জমি ভাড়া নিয়ে তিনি গড়ে তুলেছেন দিব্য এগ্রো এন্ড ডেইরী ফার্মটি। এই ফার্মে গরু ও গাভী পালনের পাশাপাশি রয়েছে ফিশারিজ, নিরাপদ সবজি ও বিভিন্ন ফলেরও চাষ করা হয়। কোবানির ঈদকে সামনে রেখে তিনি বানিয়াজুরি-ঘিওর সড়কের পাশে নিজেদের জায়গায় একটি শেড করে প্রদর্শণী ও বিক্রয় কেন্দ্র বানিয়েছেন। গত বুধবার স্থানীয় চেয়ারম্যান এসআর আনসারী বিল্টুর ওই বিক্রয় কেন্দ্রটি বন্ধ করে দেয়ার জন্য নোটিশ করেন।

তিনি বলেন, আমার এই বিক্রয় কেন্দ্রে বাইরে থেকে কোন গরু আনা হয়না এবং কোন হাসিলও নেয়া হয়না। এটাতো আমাদের বিক্রয় কেন্দ্র। কোন পশুর হাট নয়। আমাদের ফার্মে ফিড ও ইঞ্জেকশন ব্যবহার না করে সম্পূর্ণ দেশীয় প্রাকৃতিক খাদ্যে পশু পালন করা হয়।

তিনি আরো জানান, এই ফার্মটি করতে তার ১ কোটি টাকার ওপরে খরচ হয়েছে। ফার্মে ২২ জন শ্রমিক নিয়মিত কাজ করেন। ৪৩ টি ষাড়ের আনুমানিক বাজারমূল্য প্রায় ৫০ লাখ টাকা। তার ফার্মের রাস্তাটি সরু হওয়ায় সেখানে কোন ট্রাক বা পিকআপ যায়না। যেকারনে সেখান থেকে গরু বিক্রি করা সম্ভব না। তাই তিনি এই প্রদর্শণী ও বিক্রয় কেন্দ্র তৈরি করেছিলেন পশু বিক্রির জন্য। কিন্তু স্থানীয় প্রশাসনের অনুমতি না পাওয়ায় তিনি খুব দুশ্চিন্তা এবং লোকসানের শঙ্কায় রয়েছে। ঈদের মাত্র আর কয়েকদিন বাকি। এরই মধ্যে যদি ষাঁড় গুলো বিক্রি করতে না পারেন তাহলে অর্থনৈতিক লোকসানের মুখে পরবেন তিনি। তাই তিনি প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

এব্যাপারে ঘিওর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হামিদুর রহমান জানান, জেলা প্রশাসকের অনুমতি ছাড়া পশুর হাট বসানো যাবেনা। এই খানে হাট বা বিক্রয় কেন্দ্র করলে আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। তাই তাকে অনুমতি দেয়া হয়নি।




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর