চাঁদার টাকা না পাওয়ায় ব্যবসায়ীদের ওপর সন্ত্রাসীদের তান্ডব | সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
চাঁদার টাকা না পাওয়ায় ব্যবসায়ীদের ওপর সন্ত্রাসীদের তান্ডব | সব খবর | Sob khobar




চাঁদার টাকা না পাওয়ায় ব্যবসায়ীদের ওপর সন্ত্রাসীদের তান্ডব

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: সোমবার, ২৫ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৩০ জন পড়েছে

পার্থ হাসান, পাবনা: পাবনায় দাবীকৃত চাঁদার টাকা না পাওয়ায় গতকাল ভোররাতে অানুমানিক ৬টার দিকে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের উপর তান্ডব চালায় সন্ত্রাসীরা।

ঘটনাটি ঘটেছে পাবনা সদর উপজেলার দোগাছী ইউনিয়নের চরসদিরাজপুরে। এসময় সন্ত্রাসীরা নদীর পাড়ের ২টি দোকান, ঘাটে বেধে রাখা ২টি নৌকা ও ১টি স্পিডবোর্ডে আগুন ধরিয়ে দেয়। এছাড়াও দোকানে থাকা মালামাল লুন্ঠন করে নিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। হামলায় আহত হয়েছে ৪জন। আহতরা হল নাইটগার্ড ফরজ প্রমানিক, নৌকার মালিক নুরুল ইসলাম, দোকান মালিক সামিম মন্ডল ও বকুল মন্ডল।

আহতদের মধ্যে নুরুল ইসলামকে গুরুতর আহত অবস্থায় পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন, হামলার সময় কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে পুরো এলাকায় আতংক সৃষ্টি করা হয়। এসময় দোকানে অবস্থানরত বাবসায়ীকে ও নৌকার মাঝিকে ব্যপক মারধোর করে ছিনিয়ে নেয়া হয় নগদ অর্থ। লুট করা হয় দোকানের মালামাল।

স্পিডবোর্ড ব্যবসায়ী বাবু শেখ জানায়, দীর্ঘদিন যাবত ভাড়ারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু সাইদের লোকজন চরএলাকায় ত্রাসের রাজত্ব তৈরী করেছে। স্থানিয় ব্যবসায়ীদের থেকে জোরপূর্বক চাঁদা, মাদক ব্যবসার নিয়ন্ত্রন, ঘুরতে আসা পর্যটকদের হয়রানীসহ বিভিন্ন অপকর্ম করে আসছে তারা। কিছুদিন ধরে তারা স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ২ লক্ষ টাকা চাদা দাবী করে।

দাবিকৃত টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে গতকাল ভোররাতে চেয়ারম্যান আবু সাইদের ঘনিষ্ঠ সহযোগী রফিক খা, হোসেন আলী, আমজাদ শেখ, নাসির,রবি শেখসহ ২০/২৫ জনের একটি সন্ত্রাসী দল ধারালো অস্ত্রে সজ্জিতো হয়ে আমাদের ওপর হামলা চালায়। এ সময় তারা কয়েক রাউন্ড গুলি চালায়। এই হামলায় আমাদের প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন করে। তিনি আরও জানায়, আমি লোক পারাপারের জন্য একটি স্পিডবোট ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন ব্যবসা করে আসছি। এই স্পিডবোটের আয় দিয়ে আমার সংসার চলে। সন্ত্রাসীরা আয়ের একমাত্র উৎস বোটটি পুরিয়ে দেয়ায় চরম ক্ষতির সম্মুক্ষিন হয়েছি। পাশাপাশি বোট পুড়ে যাওয়ায় বোটের মূল্য পরিশোধ করতে চাপ দিচ্ছে মালিক। আমি এখন কি করে এই অর্থ পরিশোধ করবো।

আহত নুরুল ইসলাম জানায়, সন্ত্রাসীদের হামলায় আমার নৌকাটি পুরে গেছে। এ সময় তারা আমাকে বাপক মারধোর করে। বর্তমানে আমি আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রয়েছি।

সামিম মন্ডল জানান, সন্ত্রাসীরা দোকানের মালামাল লুট করার পর দোকান জালিয়ে দিয়েছে। এতে আমার প্রায় ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে।

তবে সকল অভিযোগ ভিত্তিহীন দাবি করেছেন চেয়ারম্যান আবু সাইদ। তিনি বলেন, একটি মহল রাজনৈতিক ভাবে হেয়পতিপন্ন করতেই এমন অভিযোগ করেছে। অভিযোগের কোন সত্যতা নেই।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, হামলার বিষয়ে কিছু জানা নেই। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সবখবর/ নিউজ ডেস্ক




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর