টাঙ্গাইলে গুজবে বেড়েছে লবণের দাম - সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
টাঙ্গাইলে গুজবে বেড়েছে লবণের দাম - সব খবর | Sob khobar




টাঙ্গাইলে গুজবে বেড়েছে লবণের দাম

আশিকুর রহমান, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময়: মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৩৭৮ জন পড়েছে

টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলে এবার পিঁয়াজের পাশাপাশি লবণের দাম বেশি নিয়ে গুজব ছড়িয়েছে সর্বত্র। একদিকে প্রশাসনের চলছে অভিযান অন্যদিকে বেশী দামেই চাহিদার অতিরিক্ত লবণ সংগ্রহ করছেন ক্রেতারা। অতিরিক্ত চাহিদার ফলে ইতোমধ্যে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় লবণের কৃত্রিম সংকট তৈরি হয়েছে।

এই সুযোগে বেশি দামে লবণ বিক্রি করছে দোকানদাররা। তবে বেশি দামে বিক্রির কথা কয়েকজন বিক্রেতা অস্বীকার করলেও কিছু বিক্রেতা বলছে কেনা বেশি হওয়ায় বেশি দামে বিক্রি করা হচ্ছে। আজ সারাদিন জেলার বিভিন্ন বাজারগুলোতে খোঁজ নিয়ে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

সোমবার বিকেল থেকেই লবণের দাম বেশি হয়েছে এমন গুজব ছড়িয়ে পড়ে জেলার সর্বত্র। এরপর থেকেই জনপ্রতি ক্রেতারা ৫ থেকে ১৫ কেজি পর্যন্ত লবণ ক্রয় করছেন। হঠাৎ এমন চাহিদা বৃদ্ধিতে মঙ্গলবার সকাল থেকেই বেশী দামে বিক্রির জন্য বাজারগুলোতে লবণের ইচ্চাকৃত সংকট তৈরি করে বিক্রেতাগণ। আরও তীব্র হয় লবণ সংকটের গুজব। লাইন ধরে দোকানে ভিড় জমাতে শুরু করে ক্রেতারা।

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গা কাচাবাজার ঘুরে দেখা যায়,খুচরা লবণ আগে ১৫-১৮ টাকা কেজি বিক্রি হলেও আজ দুপুর থেকে ২৫-৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। পাশাপাশি ১ কেজির পেকেট লবণের গায়ে৩৫ টাকা মূল্য লেখা থাকলেও বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৫০ টাকায় ।

ক্রেতারা বলছেন,বিভিন্ন জায়গায় নাকি অনেক বেশি দামে কেজি প্রতি লবণ বিক্রি হচ্ছে। তাই লবণ কিনতে এসেছি।এসে লাইনে দাড়িয়ে ১০-১৫ টাকা কেজি প্রতি বেশি দিয়ে কিনতে হচ্ছে।তার পরেও কিনছি,যদি পরে আরোও দাম বেড়ে যায় সেই ভয়ে।

বিক্রেতা বলছেন, লবণের দাম বেশি নেয়া হচ্ছেনা, হটাৎ করে ক্রেতার চাপ বেড়ে যাওয়ায় দুপুরের আগেই আমাদের দোকানের সব লবণ শেষ হয়ে গেছে। এরপর আমরা লবণ কিনতে গেলে মহাজনরা কিছুটা বেশি দাম নিচ্ছে।যার কারনে আমরাও অল্প কয়েকটাকা বেশি নিয়ে লবণ বিক্রি করছি।

এদিকে এই খবর ছড়িয়ে পড়লে জেলার বিভিন্নস্থানে অভিযান পরিচালনা করে প্রশাসন। তার পরেও বিকেলে থেকে তা মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ে। দোকান গুলোতে ছিল উপচে পড়া ভিড়। আর বেশি দাম নিয়েও ক্রেতাদের সামাল দিতে দোকানীদের বেগ পেতে হচ্ছে।

ম্যাজিস্ট্রেট রোকনুজ জামান, বিভিন্ন লবণের গুদাম ঘর ও খুচরা দোকানে ভ্রাম্যমাণ অভিযান পরিচালনা করি। অভিযানের সময় গুদামে বিপুল পরিমান
বিক্রি জন্য লবণ মজুদ আছে। তবে এ অভিযানে কাউকে জরিমানা করা হয়নি। কোন বিক্রেতা যদি বেশি দামে লবণ বিক্রয় করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নিব।

এছাড়া মাইকিং করে সকলকে জানিয়ে দেয়া হচ্ছে যাহারাই গুজব ছরিয়েছে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

সবখবর/ আওয়াল




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর