পাবনায় সওজের জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ, নিশ্চুপ কর্তৃপক্ষ | সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
পাবনায় সওজের জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ, নিশ্চুপ কর্তৃপক্ষ | সব খবর | Sob khobar




পাবনায় সওজের জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ, নিশ্চুপ কর্তৃপক্ষ

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ২৪ জুন, ২০২০
  • ২২৮ জন পড়েছে

মীর্জা অপু, পাবনা: পাবনার বেড়া উপজেলার কাশিনাথপুর কাজিরহাট রোডের পার্শে সড়ক ও জনপদ (সওজ) বিভাগের জায়গায় অবৈধ স্থাপনা গত বছরের শেষের দিকে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। সেই অভিযানে প্রায় পাঁচ শতাধিক কাঁচাপাকা দোকান ঘর ভেঙে গুরিয়ে দেয়া হয়।

উচ্ছেদকৃত এলাকা ঘুরে দেখা যায় বর্তমানে প্রত্যেক এলাকায় স্থানীয় প্রভাবশালীরা সেইসব সরকারি জায়গা পুনরায় দখল করে আর সি সি পিলার করে বহুতল ভবন নির্মান কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সওজ বারবার উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করলেও সওজের কিছু অসাধু কর্মকর্তা মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ফের দোকানপাট নির্মানের বিষয়ে সহযোগিতা করে থাকেন।

উপজেলার বাধেরহাট বাজারে ঘুরে দেখা যায় উচ্ছেদের পর আবার সেইসব জায়গায় সওজের কিছু কর্মকর্তার সহযোগিতায় পাকা বহুতল দালান নির্মান করছেন কিছু প্রভাবশালীরা। বাধেরহাট বাজারের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জানান, বাধেরহাটে সপ্তাহে তিনটা বড় হাট বসে রাস্তার পাশে হওয়ায় হাটের এই তিনদিনে চরম যানযটের সৃষ্টি হয়। বিগত দিনে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করার ফলে হাটের যায়গা বৃদ্ধি পাওয়ায় রাস্তায় আর যানযট সমস্যা হত না। কিন্তু বর্তমানে আবার এলাকার কিছু মানুষ যেমন: মোঃশামসুল মোল্লা, মোঃদিলবার মন্ডল, মোঃলুৎফর মোল্লা, বারেক মন্ডল, বকুল ফকির, নাদের মোল্লাসহ অনেকই সওজের জায়গা পুনরায় দখলে নিয়ে বহুতল ভবনের নির্মান কাজ কাজ করে চলেছে।

এদিকে বাধেরহাট ছাড়াও আমিনপুর, কাশিনাথপুর মোড়সহ এলাকায় সওজের উদ্ধারকৃত জায়গায় পুর্নদখল করে পাকাবাড়ি দোকান ঘর নির্মান করে ভারা দিয়েছে স্থানীয়রা।

আমিনপুরের বাবুল হাসান জানান, আমিনপুর বাস-স্টেশনের পুর্ব পার্শে জাহাঙ্গীর মিয়া নামের একজন সরক ও জনপদ বিভাগের জায়গা দখন দিয়ে সেখানে ৩ তালা পাকা দালান গড়ে তুলেছেন। কাজ চলাকালীন সময় আমরা বাধা দিলে বিভিন্ন রকম হামলা মামলার হুমকি দেয়ায় পরবর্তিতে আর কিছু বলি নাই।

পাবনা কাজিরহাট রুটের বাসচালক মোঃবাবু জানায়, আমরা প্রতিদিন পাবনা কাজিরহাট রুটে বাস চালাই কিন্তু রাস্তার দুপার্শে দখল থাকায় বিশেষ করে হাটের দিন আমাদের চরম যানযটের মধ্যে পরতে হয় এবং ছোট খাটো দুর্ঘটনা হলে পরবর্তীতে আবার আমাদেরই দোষারোপের শিকার হতে হয়। তাই আমাদের দাবি রাস্তায় পাসে যেন কোন প্রকার দোকানপাট বা হাট না বসে।

রুপপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হাসেম উজ্জলের সাথে কথা হলে তিনি জানান, বাঁধের হাট আমার ইউনিয়নের মধ্যে বিগত উচ্ছেদ অভিযানে আমি আমার হাবিলদারদেরকে উচ্ছেদ অভিযানের সহযোগিতার জন্য পাঠিয়েছি। কিন্ত এখন দেখতে পাচ্ছি আমাদের সরকার দলীয় কিছু নেতা ক্ষমতাকে অপব্যবহার করে উচ্ছেদকৃত জায়গায় আবার পাকা ভবন নির্মান করে চলেছে।

তিনি আরও জানান, এ বিষয়ে আমি পাবনার সড়ক ও জনপদ বিভাগের প্রকৌশলীকে অবহিত করেছি। আসা করবো তিনি যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহন করবেন।

পাবনা সড়ক ও জনপদ (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলী এ,কে,এম, শামসুজ্জোহা জানান, আমি ইতিপূর্বে এ বিষয়ে জেনেছি এবং খুব দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আমিনপুর থানায় চিঠি দিব।

তিনি আরও জানান করোনা কালিন সংকটকে পুঁজি করে বিভিন্ন এলাকায় উদ্ধারকৃত সওজের জায়গায় কিছু মানুষ আবার দখল করে ঘর বানানোর পায়তারা করছে আমাদের পাসের জেলা মানিকগঞ্জে এই উচ্ছেদ অভিযান ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে আমরাও খুব দ্রুত এই অভিযান পরিচালনা করবো।

সবখবর/ আআ




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর