বাঘ মনে করে আহত মেছো বিড়ালকে ধরলো গ্রামবাসী - সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
বাঘ মনে করে আহত মেছো বিড়ালকে ধরলো গ্রামবাসী - সব খবর | Sob khobar




বাঘ মনে করে আহত মেছো বিড়ালকে ধরলো গ্রামবাসী

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ৪ জুন, ২০২২
  • ৮৬ জন পড়েছে
মানিকগঞ্জের ঘিওরে ধান ক্ষেত থেকে আহত অবস্থায় এক মোছো বিড়ালকে উদ্ধার করেছে স্থানীয়রা।এঘটনায় এলাকায় বাঘ ধরা পড়েছে প্রচার হলে ভীড় জমান শত শত উৎসুক জনতা।
শুক্রবার(৩ জুন) দুপুরে উপজেলার বড়টিয়া ইউনিয়নের ফুলহারা এলাকায় বিলুপ্ত প্রায় এ প্রাণীটি ধরা পড়ে।পরে স্থানীয় এক ব্যক্তি বিশেষ কায়দায় বেঁধে ঝাকায় করে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যান।
ফুলহারা গ্রামের বাসিন্দা হোসেন সেখ জানান, কম্পাইন হারভেস্টার মেশিন দিয়ে দুপুরে ধান কাটার সময় প্রাণীটি নিচে পড়ে পিঠে গুরুতর আঘাত প্রাপ্ত হন।পরে বাঘ মনে করে স্থানীয়রা লাঠিসোটা নিয়ে এগিয়ে আসেন।এরপর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বড়টিয়া ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যাওয়া হয়।
বড়টিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সামছুল আলম মোল্লা রওশন জানান, স্থানীয়রা আহত প্রাণীটিকে ধরে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে আসলে দেখার জন্য শত শত উৎসুক মানুষ ভীড় জমান।বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, প্রাণী সম্পদ ও বন কর্মকর্তাদের জানানো হয়।
পিঠে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ায় মেছো বিড়ালটি উঠে দাঁড়াতে পারছিলো না।তার জরুরী চিকিৎসার জন্য প্রাণী সম্পদ বিভাগে যোগাযোগ করা হয়।পরে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কার্যালয়ে এর চিকিৎসা দেয়া হয়।
ঘিওর উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ এটিএম ফয়জুর রাজ্জাক আকন্দ জানান, আহত প্রাণীটিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।এটি এখন আগের চেয়ে সুস্থ।স্থানীয়দের কাছে প্রাণীটি মেছো বাঘ হিসাবে পরিচিত।বন বিভাগের কর্মকর্তাদের বিষয়টি জানানো হয়েছে।তাদের কাছেই প্রাণীটিকে হস্তান্তর করা হবে বলে জানান তিনি।
শুক্রবার রাত ৯ টার দিকে উপজেলা বন বিভাগের কর্মকর্তা মোঃ মামুন মিয়া জানান, খবর পেয়ে প্রাণী সম্পদ কার্যালয়ে তার প্রতিনিধি পাঠিয়েছিলেন।ধরাপড়া প্রাণীটি মেছো বাঘ নয়, মেছো বিড়াল।এটি সাধারণত ধান ক্ষেতেই থাকে।ইঁদুরই এদের প্রধান খাবার।মেছো বিড়াল মানুষের কোন ক্ষতি করে না।স্থানীয়রা মেছো বাঘ মনে করেই এটি ধরেছে।তবে সুস্থ হওয়ার পর প্রাণীটি পুনরায় ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর