মানিকগঞ্জে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে মামলা - সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
মানিকগঞ্জে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে মামলা - সব খবর | Sob khobar




মানিকগঞ্জে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে মামলা

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ৩ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৩ জন পড়েছে

আসাদ জামান: মানিকগঞ্জের সিংগাইরে মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে মুক্তিযোদ্ধার বাবাকে হত্যার অভিযোগে বরকত উল্লাহ (৮০) নামে এক যুদ্ধাপরাধীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্ত বরকত উল্লাহ মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার কাংশা গ্রামের বাসিন্দা।

বুধবার বেলা ১২টার দিকে মানিকগঞ্জের অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমিনুল ইসলামের আদালতে এই অভিযোগ দায়ের করেন নিহতের ছোট ছেলে মোশারফ হোসেন খোকন।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, ১৯৭১ সালে নিহতের বড় ছেলে মোস্তাহের বিল্লাহ মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহন করায় তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে তাদের বাড়িতে ও বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজি করে। কিন্তু কোথাও না পেয়ে এলাকায় মাইকিং করে এবং আমার বড় ভাই মোস্তাহের বিল্লাহকে ধরিয়ে দেওয়ার জন্য তৎকালীন ১ লক্ষ টাকা পুরস্কার ঘোষনা করেন স্থানীয় রাজাকার বরকত উল্লাহ, গোলাম আজম, আব্দুল মান্নান ও বাদশা ফকির। পরে ১৯৭১ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর আমার ভাইকে না পেয়ে বাবা আব্দুস ছালাম মুন্সীকে পাকিস্থানি বাহিনীর সহায়তায় ধরে নিয়ে সাভারের কর্নপাড়া খালের পাশে বেয়নট দিয়ে খুঁচিয়ে ও গুলি করে হত্যা করে। এবং আমার বাবার লাশ নদীতে ফেলে দেয় রাজাকার বরকত উল্লাহ।

মামলার বাদি মোশারফ হোসেন খোকন জানান, অভিযুক্ত বরকত উল্লাহর ছেলে মোতালেব স্থানীয় প্রভাবশালী হওয়ায় তার ভয়ে বিচার চাইতে পানেনি। কিন্তু স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে জানতে পারি মানিকগঞ্জে তার বাবার হত্যার বিচার পাওয়া যাবে। তাই তো দীর্ঘদিন পর বাবার বিচারের জন্য আদালতে অভিযোগ দায়ের করলাম। আমি শুধু আমার বাবার হত্যার বিচার চাই।

মামলার আইনজীবী বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: সাখাওয়াৎ হোসাইন খান জানান, বাদির বাবার হত্যার সাথে চারজন জড়িত ছিলেন। কিন্তু তিনজন মারা যাওয়ায় শুধুমাত্র বরকত উল্লাহর বিরুদ্ধে মানিকগঞ্জ অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাটিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। উক্ত আদালতের বিচারক অভিযোগপত্রটি আমলে নিয়েছেন এবং অভিযোগ পত্রটি নথিভুক্ত করে সিংগাইর থানা পুলিশকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন।

আআ




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর