মানিকগঞ্জে সবজির ভাল ফলনে খুশি কৃষক ও পাইকাররা - সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
মানিকগঞ্জে সবজির ভাল ফলনে খুশি কৃষক ও পাইকাররা - সব খবর | Sob khobar




মানিকগঞ্জে সবজির ভাল ফলনে খুশি কৃষক ও পাইকাররা

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ৩০ নভেম্বর, ২০১৯
  • ১৯৪৬ জন পড়েছে

মানিকগঞ্জ : মানিকগঞ্জের বিভিন্ন বাজারে শীতকালীন সবজির সমারোহ বেড়েছে। স্থানীয় কৃষকদের উৎপাদিত এসব সবজি পাইকারদের হাত ধরে চলে যাচ্ছে রাজধানীসহ বিভিন্ন বাজারে। অনুকূল আবহাওয়া ও ফলন ভাল হওয়ায় লাভবান হচ্ছেন চাষী ও পাইকাররা।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর ৯ হাজার ৮০০ হেক্টর জমিতে সবজি আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে প্রায় সাড়ে ৬ হাজার হেক্টর জমিতে সবজির আবাদ হয়েছে। জেলার সাতটি উপজেলার মধ্যে মানিকগঞ্জ সদর, সিংগাইর ও সাটুরিয়া উপজেলার অধিক সবজির আবাদ হয়ে থাকে। এসব অঞ্চলের সবজির মধ্যে রয়েছে ফুলকপি, বাঁধাকপি, শিম, মুলা, লাউ, বেগুন, লালশাক, পালংশাক, ঢেঁড়শ প্রভৃতি।

সাটুরিয়া উপজেলার রাইল্লা গ্রামের কপি চাষী মো. হাশেম আলী জানান, তিনি এবছর ১০০ শতাংশ জমিতে ফুলকপির আবাদ করেছেন। ১০০ শতাংশ জমিতে তিনি ৯ হাজার কপি বুনেছেন। এতে সব মিলিয়ে তার খরচ পড়েছে প্রায় এক লাখ টাকা। প্রতিপিস কপিতে তার খরচ হয়েছে ১০ টাকা করে। তিনি পাইকারদের কাছে বিক্রি করছেন প্রতিপিস ২৫ থেকে ২৫ টাকা করে। পাতাকপি বিক্রি করছেন ২৫ থেকে ৩০ টাকা দরে।

একই এলাকার চাষী লিটন মিয়া জানান, ১৫ হাজার টাকা খরচ করে প্রতি বিঘায় তিনি বেগুন পাচ্ছেন ৮০ থেকে ১০০ মণ করে। প্রতিকেজি বেগুন তারা ২০ থেকে ২২ টাকা দরে বিক্রি করছেন। লাউ বিক্রি করছেন প্রতি পিস আকার অনুসারে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা দরে। মুলা বিক্রি করছেন তারা হালি হিসেবে। বড় সাইজের ৪টি মুলার ২৫/২৮ টাকা দরে এবং চায়না মুলা ১৫/১৬ টাকা দরে বিক্রি করছেন। শিম বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৮০ টাকা দরে। পাতাসহ পেঁয়াজের কেজি ৬০/৮০ টাকা।

গোলড়া সবজির হাটের পাইকারী ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান জানান, এবছর সবজির আবাদ ভাল হয়েছে। এতে করে কৃষকদের পাশাপাশি পাইকারী ব্যবসায়ীরাও লাভবান হচ্ছেন। তিনি জানান, ফুলকপি ও পাতাকপি তারা ৪০/৪৫ টাকা দরে, শিম ১০০ থেকে ১১০ টাকা দরে, লাউ ৫০ থেকে ৭০ টাকা, বেগুন ৩০ থেকে ৪০ টাকা, মুলা কেজি ৪০/৪৫ টাকা কেজি দামে বিক্রি হচ্ছে।

তিনি জানান, ছোট একটি পিকআপে ঢাকায় সবজি নেওয়ায় খরচ হয় ৩০০০ টাকা। একটি গাড়িতে অনন্ত দুই জন শ্রমিক কাজ করেন। যে কারণে কৃষকদের কাছ থেকে কেনা দামের চাইতে একটু বেশি দামেই তাদেরকে সবজি বিক্রি করতে হয়।




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর