রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এসি রবিউলের মা - সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এসি রবিউলের মা - সব খবর | Sob khobar




রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এসি রবিউলের মা

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ২৭ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৪১৭ জন পড়েছে

মানিকগঞ্জ : গুলশানে হলি আর্টিজানে হামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন নিহত পুলিশের সহকারী কমিশনার (এসি) রবিউল করিমের মা করিমুন্নেসা বেগম। বুধবার দুপুরে রায় ঘোষণার পরে তিনি রায় নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

তিনি জানান, দেশের জন্য যে ছেলে প্রাণ হারিয়েছে তাকে আর ফিরে পাওয়া সম্ভব না। তিনি এই দিনটির জন্যই অপেক্ষায় ছিলেন। এই রায় দ্রুত কার্যকর করার পাশাপাশি তিনি প্রধানমন্ত্রীসহ আইনশৃঙ্খলা ও বিচার বিভাগের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

তিনি জানান, ২০১২ সালে রবিউল তার নিজ উদ্যোগে গ্রামের ঝরে পড়া প্রতিবন্ধী শিশুদের পড়াশুনার জন্য ব্লুমস নামে একটি প্রতিষ্ঠান তৈরি করেছিলেন। তার মৃত্যুর পর রবিউলের কয়েকজন বন্ধু-বান্ধব মিলে কোন রকম স্কুলটি চালিয়ে যাচ্ছেন। সরকার যদি এই স্কুলটির দিকে বিশেষ নজর দিত হাতলে এই স্কুলের মাঝেই রবিউলের স্বপ্নটা বেঁচে থাকতো।

করিমুন্নেসা বেগম আরো জানান, তার ছেলেকে শহীদ হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে কিন্তু তার কোন দালিলিক প্রমাণ নেই। সরকার যদি একটা সনদের ব্যবস্থা করে দিত তাহলে ভাল হতো। ভবিষ্যতে রবিউলের সন্তানরা কোথাও গিয়ে দাঁড়াতে পারতো। তিনি তার ছোট ছেলে (রবিউলের ভাই) এর জন্য একটি চাকরির দাবী জানান সরকারের কাছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজানের জঙ্গি হামলায় নিহত হয়েছিলেন মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার কাটিগ্রাম এলাকার মৃত. আব্দুল মালেকের বড় ছেলে রবিউল করিম। রবিউলের মৃত্যুর পর পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন পরিবারটি। গত দুই বছর আগে রবিউলের স্ত্রী উম্মে সালমার চাকরী হয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয়ে। তিনি সেখানে প্রশাসনিক কর্মকর্তার দায়িত্বে আছেন। চাকরীর সুবিধার্থে তিনি ঢাকার ধামরাই উপজেলার কালামপুরে বাবার বাড়িতে বসবাস করছেন। নিহত রবিউলের দুই সন্তানের মধ্যে বড় ছেলে সাজিদুল করিম (৮) পড়ছে ধামরাইয়ের একটি স্থানীয় স্কুলে। ছোট মেয়ে রাইমার বয়স সাড়ে তিন বছর। রবিউল করিমের মৃত্যুর একমাস পরেই পৃথিবীর মুখ দেখে রাইমা।




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর