শিবালয়ে ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে হত্যার হুমকি, থানায় জিডি | সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
শিবালয়ে ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে হত্যার হুমকি, থানায় জিডি | সব খবর | Sob khobar




শিবালয়ে ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে হত্যার হুমকি, থানায় জিডি

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১
  • ২৪১ জন পড়েছে

মানিকগঞ্জ: ঢাকা-পাটুরিয়া মহাসড়কে প্রশস্তকরন কাজে চাঁদাবাজি ও সরমঞ্জাম ভাংচুর ঘটনায় দায়ের করা মামলার জের ধরে এবার শিবালয় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিব হাসনাত ওরফে আওয়ালের বিরুদ্ধে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন মানিক হোসেন নামে এক ব্যবসায়ী। তাঁর বাড়ি শিবালয় উপজেলার দাসকান্দি গ্রামে। এদিকে চাঁদাবাজি ও ভাংচুর মামলায় পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

শিবালয় থানায় জিডি এবং ভূক্তভোগী সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাতে ঢাকা-পাটুরিয়া মহাসড়ক প্রশস্তকরনে কাজে বালু সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান এম এম এন্ট্রারপ্রাইজের সত্বাধিকার আমিনুল ইসলাম এবং মহাসড়কটির উন্নয়নকাজে নিয়োজিত ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান এনডিই লিমিটেডের ব্যবস্থাপক আইনুল ইসলামকে মারধর করেন শিবালয় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিব হাসনাতের সহযোগীরা। প্রতিষ্ঠান দুটির কাছ থেকে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করা হয়। চাঁদার টাকা না পেয়ে এই হামলার ঘটনা ঘটানো হয়। এ সময় এস্কাভেটর ভাঙচুর ও চাঁদা হিসাবে ২ লাখ ২২ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেওয়া হয়। এ ঘটনায় গত বুধবার রাতে এম এম এন্ট্রারপ্রাইজের সত্বাধিকার আমিনুল ইসলাম বাদি হয়ে নয়জনের নাম উল্লেখ করে শিবাণয় থানায় মামলা করেন। মামলা দায়েরে পর থেকে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিব হাসান ক্ষুব্দ হয়ে মানিক হোসেন এবং মোন্তাজ উদ্দিনকে লোকজনের মাধ্যমে ভয়ভীতি ও হত্যার হুমকি দিয়ে আসছেন।

ভূক্তভোগী মানিক হোসেন বলেন, তিনি ও মোন্তাজ উদ্দিন মাটি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের অংশীদার। এ কারণে মামলা করার পর থেকেই বিভিন্ন লোকজনের মাধ্যমে তাঁদেরকে খুন করার হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এ কারণে জীবনের নিরাপত্তায় তিনি শিবালয় থানায় বৃহস্পতিবার রাতে জিডি করেন।

এ ব্যাপারে শুক্রবার বিকেলে কথা বলতে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিব হাসনাতের মুঠোফোনে কল করে তা বন্ধ পাওয়া গেছে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউর রহমান খান সাংবাদিকদের বলেন, আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে উপজেলায় দলের সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা তাঁর অনুসারি। তবে চাঁদা দাবির ঘটনা মিথ্যা। হুমকি-ধমকি দেওয়ার ঘটনা তাঁর জানা নেই। তিনি দাবি করেন, যাঁরা মামলা করেছেন, তাঁরা বন্দর এলাকায় মাটি কেটে বিক্রি করছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে সরকারের পক্ষ থেকে মামলা করা হয়েছে।

সবখবর/ নিউজ ডেস্ক




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর