সাভারে আটকে রেখে শিশুকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার দুই | সব খবর | Sob khobar
  1. admin@sobkhobar.com : admin :
  2. editor@sobkhobar.com : editor :
সাভারে আটকে রেখে শিশুকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার দুই | সব খবর | Sob khobar




সাভারে আটকে রেখে শিশুকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার দুই

সব খবর রিপোর্ট
  • প্রকাশের সময়: সোমবার, ৩ মে, ২০২১
  • ৬২ জন পড়েছে

ঢাকা: ঢাকার সাভারে আটকে রেখে এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় সোমবার দুপুরে র‌্যাবের পক্ষ থেকে পাঁচজনকে আসামি করে থানায় মামলা করা হয়েছে। এ ঘটনায় এক তরুণীসহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৪ এর একটি দল।

আসামিরা হলেন, সাভারের আমিনবাজারের বড়দেশি এলাকার কুমারী রঞ্জিতা রানী (১৯), একই এলাকার মো. পারভেজ (৪৫), বড়দেশি পূর্বপাড়া এলাকার নিহর মিয়া (৪০), একই এলাকার জিল্লুর রহমান (৩৫) এবং বড়দেশি মধ্যপাড়া এলাকার ফরিদ মিয়া (৩৫)। তাঁদের মধ্যে রঞ্জিতা ও পারভেজকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

র‌্যাবের দায়ের করা মামলার এজাহারে বলা হয়, মাদক কেনাবেচা হচ্ছে- এমন সংবাদের ভিত্তিতে গত রোববার বিকেলে সাভারের আমিন বাজারে বড়দেশি এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব-৪ একটি দল। এ সময় ওই বাসায় রঞ্জিতা রানীসহ ১০ বছরের এক মেয়েকে দেখতে পান অভিযানিক র‌্যাবের সদস্যরা। শিশুটি ও রঞ্জিতা সাভারে একটি বাসায় পাশাপাশি ভাড়া থাকেন।

এ সময় জিজ্ঞাসাবাদ করলে শিশুটি র‌্যাব সদস্যদের জানায়, গত ৭ এপ্রিল সন্ধ্যায় ফুসলিয়ে ও টাকা-পয়সার প্রলোভন দেখিয়ে মেয়েটিকে আমিনবাজার বড়দেশি এলাকায় পারভেজের বাসায় নিয়ে যান রঞ্জিতা রানী। সেখানে পারভেজ ও নিহর মিয়া ইয়াবা সেবন করছিলেন। এ সময় পারভেজের কাছ থেকে দুই হাজার টাকা নিয়ে মেয়েটিকে রেখে রঞ্জিতা বাসা থেকে চলে যান। এর রাতে মেয়েটিকে পারভেজ ও নিহর মিয়া ধর্ষণ করেন।

জিজ্ঞাসাবাদে মেয়েটি র‌্যাব সদস্যদের আরও জানায়, বিষয়টি কাউকে না জানানোর জন্য তাঁরা বিভিন্ন ধরণের ভয়ভীতি দেখান। মেয়েটি সারারাত ওই বাসায় রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকে। পরের দিন (৮ এপ্রিল) সকালে ব্যথার ওষুধ খাওয়ানোর পর রঞ্জিতা মেয়েটি বাড়িতে দিয়ে আসেন। এরপর গত ২৭ এপ্রিল রঞ্জিতার সহযোগিতায় ফরিদ মিয়া শিশুটিকে ধর্ষণ করেন।

র‌্যাব-৪ সূত্র জানায়, গত রোববার আটক রঞ্জিতার দেওয়া তথ্য অনুযায়ি ওই দিনই (২৭ এপ্রিল) নিজ বাসা থেকে পারভেজকে আটক করা হয়। এসব ঘটনায় গতকাল ঢাকার মিরপুর র‌্যাব-৪ এর নায়েব সুবেদার আজাদ রহমান বাদি হয়ে শিশুটিকে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগে পারভেজ ও ফরিদ এবং ধর্ষণের সহযোগিতার অভিযোগে বাকি তিনজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

র‌্যাবের নায়েব সুবেদার আজাদ রহমান বলেন, ভূক্তভোগী শিশুটির মা মানসিক প্রতিবন্ধী এবং বাবা তাঁদের সঙ্গে না থাকায় তিনি বাদি হয়ে মামলাটি করেন।

এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম বলেন, আজ শিশুটির ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়েছে। পাশাপাশি গতকাল পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে গ্রেপ্তার দুই আসামিকে ঢাকার চীপ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়। বিচারক তাঁদের একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। এ ছাড়া অন্যান্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

সবখবর/ নিউজ ডেস্ক




Comments are closed.

এই বিভাগের আরো খবর




ফেসবুকে সব খবর